শিশুর ভাঙা হাত রেখে ভালো হাতে প্লাস্টার করলেন চিকিৎসক

নেত্রকোনার মদন উপজেলার ৫০ শয্যা হাসপাতালে ইমা আক্তার (২) নামের এক শিশুর ভাঙা হাত (বাম) রেখে ভালো (ডান) হাতে প্লাস্টার করে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালের সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট মেডিকেল কর্মকর্তা মো. মিরাজুল ইসলাম মিরাজ এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। শিশু ইমা আক্তার মদন উপজেলার দক্ষিণপাড়া গ্রামের ইদুচানের মেয়ে।

শিশু ইমা আক্তারের বাবা ইদুচান বলেন, আমার মেয়ে মঙ্গলবার দুপুরে ঘরের চৌকি থেকে পড়ে বাম হাতে ব্যথা পায়। এরপর তাকে মদন হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক হাতের এক্স-রে করার জন্য বললে আমি তা করে নিয়ে আসি। পরে মেয়ের ভাঙা (বাম) হাত রেখে ভালো (ডান) হাতে প্লাস্টার করে আমাদের বাড়ি পাঠিয়ে দেন চিকিৎসক মিরাজুল ইসলাম। বাড়ি এসে দেখতে পাই মেয়ের বাম হাত ফুলে গেছে। পরে সন্ধ্যায় আমার মেয়েকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডান হাতের প্লাস্টার খুলে বাম হাতে প্লাস্টার করে দেন চিকিৎসক।

বিষয়টি স্বীকার করে হাসপাতালের সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট মেডিকেল কর্মকর্তা মো. মিরাজুল ইসলাম মিরাজ বলেন, এটি ভুলবশত হয়েছে। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডা. ফখরুল হাসান চৌধুরী টিপু বলেন, শুনেছি ইমা আক্তার নামের এক শিশুর ভাঙা হাত রেখে ভালো হাতে প্লাস্টার করা হয়েছে। যদি পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় তাহলে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here