মূল পরিকল্পনাকারীসহ এবিটির আরো চারজন গ্রেপ্তার

গত বছরের আগস্ট মাসে রাজধানীর সাইন্সল্যাব মোড়ে পুলিশের ওপর বোমা হামলার মূল পরিকল্পনাকারী জঙ্গি নেতা শহিদুল ইসলাম ওরফে মোবাশ্বেরকে (৩৮) গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

গতকাল রবিবার গাজীপুর কাশিমপুরের দক্ষিণ পানিশাইল এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে। তিনি এরই মধ্যে এ বিষয়ে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বলে র‍্যাব জানিয়েছে।

এর আগে গত ৩০ এপ্রিল কাশিমপুরের মোল্লাপাড়া থেকে তার তিন সহযোগী মো. ইয়াকুব আলী অরফে সাজিদ (৩৩), শাহপরান ওরফে আব্দুল্লাহ ওরফে সেনা (২৬) ও মো. শহিদুল ইসলাম ওরফে তাকওয়া (৪৮)কে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাব-২ জানায়, এরা প্রত্যেকে জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলাম বা আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সক্রিয় সদস্য। তাদের কাছ থেকে উগ্রবাদী প্রচারপত্র, মিডিয়া সামগ্রী, জঙ্গিবাদ ছড়ানো উগ্র বই, ভিডিও সামগ্রী, মোবাইল ও কম্পিউটার উদ্ধার করা হয়েছে।

জানতে চাইলে র‌্যাব-২ এর কোম্পানি কমান্ডার মুহম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী বলেন, গত বছরের ৩১ আগস্ট ভোর সাড়ে ৬টার দিকে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিলানে “এম ভি তাসরিফ” নামে লঞ্চ থেকে আবু সুফিয়ান ইমু (২৫) ও সহিফুল ইসলাম সাইফ নামের ২ জঙ্গিকে আটক করে র‌্যাব-২। তখন বেশ কয়েকজন জঙ্গি লঞ্চ থেকে লাফিয়ে নদী পার হয়ে পালিয়ে যায়।

একইদিন রাত সাড়ে ৯টার দিকে সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে পুলিশের ওপর বোমা হামলা ঘটে। সকালে আটক হওয়া দুজন প্রাথমিকভাবে জানায়, তারা ১৬ ডিসেম্বরকে সামনে রেখে নাশকতার পরিকল্পনা ও টার্গেট চূড়ান্তের জন্য ঢাকায় এসেছিল।

এই ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার সূত্র ধরে গত ৩০ এপ্রিল কাশিমপুর মোল্লাপাড়া থেকে মো. ইয়াকুব আলী, আশুলিয়ার টেংগুরী পুকুরপাড় থেকে শাহপরান ও মো. শহিদুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাব-২ এর কোম্পানি কমান্ডার মুহম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী আরো জানান, তিন আসামিকে আদালতে সোপর্দ করা হলে তারা নিজেদের সম্পৃক্ততা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় এবং মামলার অন্যতম পলাতক আসামির নাম ঠিকানা প্রকাশ করে।

তাদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কাশিমপুরের দক্ষিণ পানিশাইল থেকে মো. সহিদুল ইসলাম ওরফে মোবাশ্বেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। মোবাশ্বের ৩ এপ্রিল আদালতে হামলার ঘটনায় মূল পরিকল্পনাকারী বলে স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ৩১ আগস্ট রাত ৯টার দিকে রাজধানীর সাইন্সল্যাব মোড়ে পুলিশের ওপর বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এতে দুজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছিলেন। তাদের একজন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের প্রটোকল সদস্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here