পুকুরে ভাসছিল স্বামীর লাশ, পালানোর সময় স্ত্রী আটক

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বাড়বকুণ্ডে একটি ‍পুকুর থেকে ভাসমান অবস্থায় জয়নাল আবেদীন (২৯) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শনিবার ভোরে সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

পুলিশের ধারণা, জয়নাল আবেদীনের স্ত্রী লিমা আকতার (২৪) এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত। ঘটনার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় অভিযান চালিয়ে লিমাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। নিহত জয়নালের বাড়ি উপজেলার বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের তেলীপাড়া গ্রামে। জয়নাল-লিমা দম্পতির দুটি মেয়ে আছে।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক প্রথম আলোকে বলেন, লিমা আকতার ভোরে প্রতিবেশীদের জানান, গভীর রাতে তাঁর স্বামীকে ডেকে নিয়ে গেছেন প্রতিবেশী শাহাদাত হোসেন। এরপর তিনি আর ফেরেননি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। খবর শুনে স্থানীয় লোকজনও তাঁকে খুঁজতে বের হয়। এরই মধ্যে লিমা পালিয়ে যান। এতে স্থানীয় লোকজন ও পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সন্দেহের সৃষ্টি হয়।

এই কর্মকর্তা আরও বলেন, স্থানীয় লোকজন জয়নাল আবেদীনের বসতঘরে গিয়ে মেঝেতে রক্ত দেখতে পান। পরে এটি হত্যাকাণ্ড বলে নিশ্চিত হয়ে জয়নালের লাশ ও লিমাকে খুঁজতে শুরু করেন তাঁরা। ভোরের আলোয় বাড়ির পাশের পুকুরে জয়নালের লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে। জয়নালের পেটের ডান পাশে ছুরির জখমের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে।

স্থানীয় লোকজন ও নিহত ব্যক্তির পরিবারের সদস্যদের ভাষ্য, শাহাদাতের সঙ্গে লিমার পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। এ নিয়ে কয়েক দফায় সালিস বৈঠকও হয়েছে। দুদিন আগেও এ নিয়ে বৈঠক হয়।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক বলেন, প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা, লিমা ও শাহাদাত মিলে জয়নালকে হত্যা করেছেন। সকালে লিমা একটি ব্যাগ নিয়ে গাড়িতে করে পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ তাঁকে বাড়বকুণ্ড বাজার এলাকা থেকে আটক করেছে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ব্যাপারে মামলা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here