করোনাভাইরাস: বিশেষ বিমানে বাংলাদেশ ছাড়তে শুরু করেছে বিদেশিরা

বাংলাদেশে থাকা বিদেশি নাগরিকদের অনেকে, যাদের মধ্যে ঢাকায় বিদেশি মিশনে কর্মরত জনবল এবং তাদের পরিবারের সদস্যরাও রয়েছেন, নিজ নিজ দেশের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেছেন।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন তৌহিদ উল আহসান জানান, গত মধ্যরাতে মালয়েশিয়া থেকে আসা একটি বিমানে ২২৫ জন মালয়েশিয়ান নাগরিক ও আজ সকালে ভূটানের ব্যবস্থাপনায় সেদেশের ১৩৯ জন নাগরিক নিজ দেশে ফিরে যান।

বাংলাদেশে থাকা বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতরা গত কয়েকদিন ধরে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে এ বিষয়ে বৈঠক করেন। মঙ্গলবার মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবের সাথে এবং বুধবার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে বৈঠক করেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতরা।

এসব বৈঠকে বলা হয়, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে গত কয়েক সপ্তাহে অধিকাংশ বাণিজ্যিক ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় নিজেদের দেশে ফিরতে অসুবিধায় পড়ছেন বিদেশি নাগরিকরা। এসব নাগরিকেরা নিজ দেশে ফিরে যেতে চাইলে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে কী ধরণের সহায়তা করা হবে, তা নিয়ে আলোচনা হয় বৈঠকে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব খলিলুর রহমান জানান, কোনো দেশ তাদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতে চাইলে বাংলাদেশ পূর্ণ সহায়তা করবে।

তিনি বলেন, “তারা যদি নিজেদের নাগরিকদের জন্য বিশেষ প্লেনের ব্যবস্থা করতে চায়, তার অনুমতি দেবো আমরা। আবার তারা বাংলাদেশ বিমানের কোনো প্লেন চার্টার করতে চাইলে তাও করতে পারেন।”

যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের কিছু দেশের নাগরিকরা নিজেদের দেশে ফিরে যেতে চেয়েছেন বলে জানান খলিলুর রহমান। তবে তাদের সংখ্যা কত, সে সম্পর্কে নির্দিষ্টভাবে বলতে পারেননি তিনি।

ইউরোপে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় ১৪ই মার্চ ব্রিটেন বাদে ইউরোপের যে কোনো দেশ থেকে আসা ফ্লাইট অবতরণ বন্ধ করার সিদ্ধান্তের কথা জানায় বাংলাদেশ সরকার।

এরপর ২১শে মার্চ মধ্যরাত থেকে বিদেশ থেকে ফ্লাইট আসার ব্যাপারে আরো কড়াকড়ি আরোপ করা হয়।

বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে শুধুমাত্র লন্ডন ও ম্যানচেস্টারে ফ্লাইট পরিচালনা করছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।


সুত্রঃ বিবিসি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here